1. admin@jn24news.com : admin :
  2. mail.bizindex@gmail.com : newsroom :
মঙ্গলবার, ২৫ জুন ২০২৪, ০৮:৪০ পূর্বাহ্ন

দ্বাদশ নির্বাচন নিয়ে এখনো দেশি-বিদেশি ষড়যন্ত্র চলছে: প্রধানমন্ত্রী

  • Update Time : বৃহস্পতিবার, ২৮ ডিসেম্বর, ২০২৩
  • ৯৪ Time View

জেএন ২৪ নিউজ ডেস্ক: দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন নিয়ে এখনো দেশি-বিদেশি নানা ষড়যন্ত্র চলছে বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

তিনি বলেন, যেহেতু নির্বাচন নিয়ে জাতীয় ও আন্তর্জাতিক নানা চক্রান্ত, সেকারণে নির্বাচনের পরিবেশটা যাতে সুন্দর হয়, উৎসবমুখর হয় এবং প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ হয়।

বৃহস্পতিবার ঢাকা জেলা আওয়ামী লীগের অফিস থেকে ৬টি জেলায় নির্বাচনি জনসভায় ভার্চুয়ালি যুক্ত হয়ে একথা বলেন তিনি।

ময়মনসিংহ বিভাগের জামালপুর ও শেরপুর জেলা, ঢাকা বিভাগের কিশোরগঞ্জ ও নরসিংদী জেলা এবং চট্টগ্রাম বিভাগের চাঁদপুর ও বান্দরবান জেলার নির্বাচনি জনসভায় বক্তব্য দেন আওয়ামী লীগ সভাপতি।

শেখ হাসিনা বলেন, আমরা প্রথম থেকে বলছি নির্বাচন হবে সংবিধান অনুযায়ী। এবার সুষ্ঠু সুন্দর একটা নির্বাচন হবে। এ কথা দেশের মানুষ বিশ্বাস করলেও বিএনপি বিশ্বাস করে না। কারণ বিএনপি ভোট চুরি করে ক্ষমতায় এসেছিল কিন্তু ক্ষমতায় থাকতে পারেনি। তাই তারা সুষ্ঠু নির্বাচনে বিশ্বাস করে না।

আওয়ামী লীগ সভাপতি বলেন, ২০০৮ সাল থেকে আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসার পর জনগণের সেবক হিসেবে কাজ করে যাচ্ছে। বাংলাদেশের প্রতিটা সেক্টরে উন্নয়ন-অগ্রগতি হয়েছে। বিভিন্ন পদক্ষেপ নিয়ে মানুষের ভাগ্য উন্নয়নে কাজ করে যাচ্ছে সরকার। ২০০৮ সালে বিএনপি-জামায়াতের ২০ দলীয় জোট মিলে মাত্র ৩০টি সিট পেয়েছিল। এরপর থেকেই বিএনপি নির্বাচনবিরোধী কার্যকলাপ শুরু করে। ২০১৪ সালে নির্বাচন বানচাল করার জন্য ২০১৩ সাল থেকে আগুন সন্ত্রাস শুরু করে। তাদের দেওয়া আগুনে কত মানুষ অগ্নিদগ্ধ হয়েছে তার হিসাব নেই।

‘জিয়াউর রহমান যেমন ক্ষমতায় এসে হত্যা, গুম, খুন শুরু করে খালেদা জিয়াও একইভাবে ক্ষমতায় এসে এসব কর্মকাণ্ড করেছে।’

তিনি আরও বলেন, ২০০১ সালে বিএনপি ক্ষমতায় আসার পর আরও এক ধাপ অত্যাচারের মাত্রা বাড়িয়ে দেয়। দুর্নীতি, হত্যা, গুম, খুন-ধর্ষণ হামলা করে। এমন কোনো বিষয় নেই যে বিএনপি ক্ষমতায় থাকাকালীন সময় করেনি। এই কারণেই বিএনপিকে ২০০৮ সালে দেশের মানুষ প্রত্যাখ্যান করে।

আওয়ামী লীগের সভাপতি শেখ হাসিনা বলেন, ২০১৩-১৪ সালের মতো বিএনপি আবারো অগ্নিসন্ত্রাস শুরু করেছে নির্বাচন বানচালের নামে। একটি দেশ পরিবর্তন হয় নির্বাচনের মাধ্যমে। এদেশের অতীত ইতিহাস বলে আওয়ামী লীগের হাতে এদেশের মানুষের ভাগ্য পরিবর্তন হয়, এছাড়া অন্য কোনো দলের হাতে হয় না। ২০০৮ সালে আওয়ামী লীগ যে ইশতেহার দিয়েছিল তা বাস্তবায়ন করেছে। সাক্ষরতার হার বৃদ্ধি করার পাশাপাশি কর্মসংস্থান সৃষ্টি করে বাংলাদেশকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছি। আমরা দিনবদলের সনদ ঘোষণা করেছিলাম। সেই লক্ষ্য বাস্তবায়নে সরকার কাজ করেছে। আজ বাংলাদেশের দৃশ্যপট উন্নয়ন-অগ্রগতিতে পরিবর্তন হয়েছে, ২০২১ সালেই উন্নয়নশীল বাংলাদেশে পরিণত হয়েছে।

দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন বাংলাদেশের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশের জন্য দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন খুবই গুরুত্বপূর্ণ। কারণ উন্নয়নশীল দেশের মর্যাদা আমরা পেয়েছি। সেটাকে ধরে রেখে এগিয়ে নিয়ে যেতে হবে, উন্নত সমৃদ্ধিশালী বাংলাদেশ গড়ে তুলতে। আমরা পঞ্চবার্ষিকী পরিকল্পনা করে বাংলাদেশকে এগিয়ে নিয়ে গিয়েছি।

২০০৮ সাল, ২০১৪ ও ২০১৮ সালে নৌকা মার্কায় ভোট দিয়ে আওয়ামী লীগকে ক্ষমতায় আনার জন্য‌ জনগণকে ধন্যবাদ জানিয়ে শেখ হাসিনা বলেন, দেশের মানুষ আমাদের ভোট দিয়ে ক্ষমতায় এনেছে বলে আমরা বাংলাদেশকে উন্নত করতে পেরেছি। এভাবেই আমরা জনগণের সঙ্গে সম্পৃক্ত থেকে জনগণের কল্যাণে কাজ করে বাংলাদেশকে এগিয়ে নিয়ে যেতে চাই।

২০৪১ সালের কথা উল্লেখ করে সরকারপ্রধান বলেন, আমাদের পরিকল্পনা আছে ২০২১ সাল থেকে ২০৪১ সালের মধ্যে বাংলাদেশকে উন্নত সমৃদ্ধিশালী স্মার্ট সোনার বাংলাদেশ গড়ে তুলব। আজকে যে শিশুটা জন্ম নেবে তার জন্য যেন আমরা সুন্দর একটা বাংলাদেশ গড়ে তুলে দিয়ে যেতে পারি এটাই আওয়ামী লীগ সরকারের লক্ষ্য। প্রতিটা মানুষ যেন উন্নত জীবন পায় সেটি আমাদের লক্ষ্য, সেই লক্ষ্যেই আমরা কাজ করে যাচ্ছি।

বিএনপির সমালোচনা করে আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা বলেন, বিএনপির কাজই হচ্ছে পরস্পরের মধ্যে সংঘাত সৃষ্টি করে নির্বাচনকে বানচাল করা। আওয়ামী লীগ সরকার ধারাবাহিকভাবে ক্ষমতায় আছে বলেই দেশের উন্নতি হয়েছে। বিএনপি ক্ষমতায় থাকতে বাংলাদেশকে এক কদমও এগিয়ে নিয়ে যেতে পারেনি বরং পিছিয়ে দিয়েছে। আওয়ামী লীগ সরকার ক্ষমতায় থাকলে দেশের মানুষের ভাগ্য পরিবর্তন হয় এটা প্রমাণিত।

শরিকদের আর আসন ছাড় দেবে না আ.লীগ

ভবিষ্যতে নির্বাচনে আওয়ামী লীগ শরিকদের আর আসন ছাড় দেবে না বলে জানান দলীয় প্রধান শেখ হাসিনা। নেতাকর্মীদের উদ্দেশে তিনি বলেন, দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনই শেষ, ভবিষ্যতে আওয়ামী লীগ আর কোনো নির্বাচনে কাউকে আসন ছাড় দেবে না।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
© All rights reserved © 2019 Breaking News
Theme Customized By BreakingNews