1. admin@jn24news.com : admin :
  2. mail.bizindex@gmail.com : newsroom :
শনিবার, ২৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০১:১২ পূর্বাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ :
বিসিএস নির্বাচনে ড. আরেফিন-ববী প্যানেলের নিরস্কুশ বিজ বাংলাদেশ কম্পিউটার সোসাইটির কেন্দ্রীয় ব্যবস্থাপনা মিরপুরে ঝিলপাড় বস্তির অগ্নিকাণ্ডে অল্পের জন্য সন্তানসহ প্রাণে বাঁচেন রোকসানা ফের পেঁয়াজ রপ্তানির ঘোষণা ভারতের মাত্র ত্রিশ হাজার টাকায় রোহিঙ্গাদের নাগরিক বানিয়ে দিতেন তারা এনআইডি জালিয়াতি রোধে কর্মকর্তাদের একে অন্যের কম্পিউটার ব্যবহারে নিষেধাজ্ঞা ইসির বিতাড়িত রোহিঙ্গাদের প্রতি উদারতা বোঝা হয়ে দাঁড়িয়েছে: প্রতিমন্ত্রী মির্জা আব্বাস সব মামলায় জামিন পেলেন ‘দরবেশ বাবা’দের প্রতারকের পাল্লায় পড়ে খুইয়েছেন ২৫ লাখ টাকা মালিবাগে দশতলা ভবন থেকে পড়ে পুলিশ কর্মকর্তার বাসার গৃহকর্মীর মৃত্যু কক্সবাজারের রামু গুচ্ছগ্রামে ১৮ কেজি গাঁজাসহ দুইজন মাদক কারবারীকে আটক করেছে র‌্যাব-(১৫)

এক দিনে ১৬ হাজার কোটি টাকা ধার দিলো বাংলাদেশ ব্যাংক

  • Update Time : মঙ্গলবার, ৩১ অক্টোবর, ২০২৩
  • ৫০ Time View

জেএন ২৪ নিউজ ডেস্ক: ঋণ বিতরণের চেয়ে আমানত কমে যাওয়ায় কয়েকটি ব্যাংক তারল্য সংকটে পড়েছে। সংকটে থাকা এসব ব্যাংককে সোমবার (৩০ অক্টোবর) ১৬ হাজার ৪১০ কোটি টাকা স্বল্প মেয়াদি ধার দিয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক। এর আগের দিন ধার দিয়েছে ১৪ হাজার ৫২৮ কোটি টাকা।

বাংলাদেশ ব্যাংকের তথ্য অনুযায়ী, সোমবার সাত দিন মেয়াদি রেপোর বিপরীতে ১৬টি ব্যাংক ও দুইটি আর্থিক প্রতিষ্ঠান নিয়েছে ছয় হাজার ৩৮৮ কোটি টাকা। ‘স্ট্যান্ডিং লেন্ডিং ফ্যাসিলিটি’ হিসেবে একটি ব্যাংক এক হাজার ৩৮০ কোটি টাকা নিয়েছে। এছাড়া একদিন মেয়াদি তারল্য সুবিধার আওতায় ১৩টি বেসরকারি ব্যাংক আট হাজার ৬৪২ কোটি টাকা নিয়েছে।

সাত দিন মেয়াদি রেপোর বার্ষিক সুদহার ৭ দশমিক ৩৫ শতাংশ। আর স্ট্যান্ডিং লেন্ডিং ফ্যাসিলিটির সুদহার ৯ দশমিক ২৫ শতাংশ এবং তারল্য সুবিধার সুদের হার ছিল ৭ দশমিক ২৫ শতাংশ।

ব্যাংক কর্মকর্তারা বলেছেন, দীর্ঘদিন ধরে দেশের মূল্যস্ফীতি প্রায় ১০ শতাংশ। বিভিন্ন উদ্যোগ নিলেও এটি কমানো সম্ভব হয়নি। ২০২২-২৩ অর্থবছরে সরকার এক লাখ ২২ হাজার ৯৮০ কোটি টাকা ঋণ নেয়। এর সিংহভাগ বাংলাদেশ ব্যাংক দিয়েছিল। এর উপর সুদের হার এক জায়গায় ধরে রাখা হয়েছিল। এছাড়া রিজার্ভ থেকে ডলার বিক্রি করছে বাংলাদেশ ব্যাংক। এতে বাজার থেকে টাকা উঠে আসছে। এর ফলে ব্যাংক খাত তারল্য সংকটে ভুগছে।

করোনার পর রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধ ও বিশ্ব অর্থনীতির নানা সংকট দেখিয়ে ঋণ পরিশোধে বিশেষ ছাড় দেয় বাংলাদেশ ব্যাংক। এর সুযোগ নিয়ে ব্যাংকগুলোর অনেক বড় বড় গ্রাহক বছরের পর বছর ঋণ বাড়াচ্ছে। কিন্তু টাকা ফেরত দিচ্ছে না। আবার অনেকে রাজনৈতিক প্রভাব খাটিয়ে ও জাল-জালিয়াতির মাধ্যমে ঋণ নিয়ে লুটপাট করে বিদেশে অর্থ পাচার করে দিচ্ছে। এতে করে ব্যাংক থেকে যেভাবে টাকা বেরিয়ে যাচ্ছে সেই হারে ফেরত আসছে না বলে মনে করছেন অর্থনীতিবিদরা।

অনেক আগে থেকেই বাংলাদেশ ব্যাংক থেকে সরকারকে ঋণ না দেওয়ার পরামর্শ দিয়ে আসছিলেন অর্থনীতিবিদরা। বাংলাদেশ ব্যাংক সরাসরি ঋণ দেওয়া মানে নতুন টাকা ছাপানোর মতো। এ প্রবণতা মূল্যস্ফীতিকে উস্কে দেয়। দীর্ঘদিন এ নিয়ে কোনো ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়নি। তবে পরবর্তীতে আইএমএফের ঋণের শর্তের কারণে গত জুলাই থেকে সুদহারের সীমা তুলে নতুন ব্যবস্থা করা হয়েছে। আর ৪ অক্টোবর রেপোর সুদহার ৭৫ বেসিস পয়েন্ট বাড়িয়ে ৭ দশমিক ২৫ শতাংশ করা হয়েছে।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
© All rights reserved © 2019 Breaking News
Theme Customized By BreakingNews