1. admin@jn24news.com : admin :
  2. mail.bizindex@gmail.com : newsroom :
সোমবার, ১৭ জুন ২০২৪, ১০:৫৯ পূর্বাহ্ন

বিশ্বকাপে আবারও ভারতের কাছে হারলো পাকিস্তান

  • Update Time : শনিবার, ১৪ অক্টোবর, ২০২৩
  • ৮৯ Time View


জেএন ২৪ নিউজ ডেস্ক: না হলো না ইতিহাস রচনা করা। বিশ্বকাপে আবারও ভারতের কাছে হারলো পাকিস্তান। রোহিত শর্মার ৮৬ ও শ্রেয়াস আইয়ারের অপরাজিত ৫৩ রানে ভর করে পাকিস্তানের দেওয়া ১৯২ রানের লক্ষে ভারত পৌঁছে গেছে মাত্র তিন উইকেট হারিয়ে। যার ফলে পাকিস্তানের বিপক্ষে সাত উইকেটের বিশাল জয় নিয়ে মাঠ ছাড়লো ভারত।

বিশ্বকাপে ভারতের মুখোমুখি হলেই যেনো ছন্দ হারিয়ে ফেলে পাকিস্তান। ১৯৯২ থেকে ২০২৩ পর্যন্ত মোটা আটবার বিশ্বকাপে মুখোমুখি হলেও একবারও জয় পায়নি পাকিস্তান। বাবর-রিজওয়ানদের সাম্প্রতিক পারফরমেন্স দেখে সবাই ভেবেছে এবার বিশ্বকাপে ভারতের মাটিতে ভারতেকে হারিয়ে ইতিহাস রচনা করবে পাকিস্তান। কিন্তু হলো তার উল্টো। পাকিস্তানের বদলে ভারত অষ্টমবারের মতো হারালো পাকিস্তানকে।

চলতি বিশ্বকাপে নিজেদের প্রথম দুই ম্যাচে বড় জয় পায় পাকিস্তান। দারুণ ছন্দে থাকা পাকিস্তান ভারতের বিপক্ষে টস হেরে ব্যাটিংয়ে নেমে শুরুটা ভালোই করে । ৭৩ রানে ২ উইকেট যাওয়ার পর দলের হাল ধরেন বাবর-রিজওয়ান। এই জুটিতে ভর করে বড় সংগ্রহের দিকে এগোতে থাকে পাকিস্তান। কিন্তু ১৫৫ রানে বাবরের বিদায়ের পর ভেঙে যায় এই জুটি। এরপরেই তাসের ঘরের মতো ভাঙতে থাকে পাকিস্তানের ব্যাটিং লাইন আপ। যার ফলে ৪২ ওভার ৫ বলেই সব উইকেট হারিয়ে ১৯১ রান করতে সক্ষম হয় পাকিস্তান। জয়ের জন্য ভারতের দরকার ছিল ১৯২ রান।

রোহিত শর্মার ৬৩ রান আর শেষের দিকে শ্রেয়াস আইয়ারের অপরাজিত ৫৩ রানের সুবাদে ১১৭ বল বাকি থাকতে মাত্র তিন উইকেট হারিয়ে পাকিস্তানের দেওয়া ১৯২ রানের লক্ষে পৌঁয়ে যায় ভারত। পাকিস্তানের বিপক্ষে সাত উইকেটের জয় নিয়ে মাঠ ছাড়লো কোহলিরা।

ভারতের হয়ে আজ ওপেনিংয়ে নামেন রোহিত শর্মা ও শুভমান গিল। সুস্থ হয়ে একাদশে ফেরা গিল আজ নিজের ইনিংস বেশিদূর নিয়ে যেতে পারেননি।

১১ বলে ১৬ রান করে শাহিন আফ্রিদির শিকার হয়ে ফিরে যান তিনি। তাদের বিদায়ে ৩৪ রানেই ওপেনিং জুটি ভাঙে ভারতের। গিলের বিদায়ের পর বিরাট কোহলিকে নিয়ে জুটি বাঁধেন রোহিত শর্মা। পাকিস্তানের বোলারদের ওপর তান্ডব চালাতে শুরু করেন তিনি। তাকে যোগ্য সঙ্গ দিতে থাকেন কোহলি।

কিন্তু দলীয় ৭৯ রানে হাসান আলির শিকার হয়ে প্যাভিলিয়নে ফিরে যান কোহলি। ১৮ বলে ১৬ রান করে ফিরে যান তিনি।
বিরাটের বিদায়ের পর শ্রেয়াস আইয়ারকে নিয়ে জুটি বাঁধেন রোহিত। এর মাঝেই তুলে নেন ব্যক্তিগত অর্ধশতক। মাত্র ৩৬ বলে তিনি তুলে নিয়েছেন ৫০ রান। যার মধ্যে রয়েছে তিনটি চার ও চারটি ছয়ের মার।

অর্ধশতক তুলে নেওযার পর পর শ্রেয়াস আইয়ারকে নিয়ে ধীরে ধীরে জয়ের দিকে এগিয়ে যাচ্ছিলেন রোহিত শর্মা। কিন্তু দলীয় ১৫৬ রানে শাহিন আফ্রিদির দ্বিতীয় শিকার হয়ে ফিরে যান রোহিত।

৬৩ বলে ৮৬ রান করেন তিনি। তার বিদায়ের পর লোকেশ রাহুলকে নিয়ে জয় তুলে নিয়ে মাঠ ছাড়েন শ্রেয়াস আইয়ার। আজ তিনিও তুলে নেন ব্যক্তিগত অর্ধশতক। ৬২ বলে ৫০ করেন তিনি। মেষ পর্যন্ত ৫৩ রানে অপিরাজিত থাকেন। আর লোকেশ রাহুল অপরাজিত থাকেন ২৯ বলে ১৯ রান করে।

এর আগে পাকিস্তানের হয়ে আজ ওপেনিংয়ে নামেন আবদুল্লাহ শফিক ও ইমাম উল হক। শুরু থেকেই এই দুই ওপেনার দেখেশুনে সাবধানে খেলতে থাকেন। ভারতীয় বোলারদের কোনো সুযোগই দিচ্ছিলেন না।

অবশেষে মোহাম্মদ সিরাজ ভাঙেন এই জুটি। মোহাম্মদ সিরাজের বলে এলবিডব্লিউয়ের শিকার হয়ে ফিরে যান আগের ম্যাচের সেঞ্চুরিয়ান আবদুল্লাহ শফিক। ২০ বলে ২৪ রান করে ফিরে যান তিনি। তার বিদায়ে ৪১ রানে ভাঙে পাকিস্তানের ওপেনিং জুটি।

দলীয় ৪১ রানে শফিকের বিদায়ের পর বাবর আজমকে নিয়ে জুটি বাঁধেন ইমাম। এই দু’জন দেখেশুনেই খেলছিলেন। কিন্তু হার্দিক পান্ডিয়ার শিকার হয়ে ৩৮ বলে ৩৬ রান করে ফিরে গেলে ভেঙে যায় এই জুটি। যার ফলে দলীয ৭৩ রানেই দুই উইকেট হারায় পাকিস্তান।

এরপর মোহাম্মদ রিজওয়ানকে নিয়ে জুটি বাঁধেন বাবর আজম। এর মাঝেই বাবর তুলে নেন ব্যক্তিগত অর্ধশতক। ৫৭ বলে ৫০ রান করেন তিনি। যার মধ্যে রয়েছে ৭টি চারের মার।

কিন্তু অর্ধশতক তুলে নেওয়ার পর নিজের ইনিংস আর বেশিদূর নিয়ে যেতে পারলেন না। মোহাম্মদ সিরাজের বলে বোল্ড হন হয়েছেন।
সাজঘরে ফেরার আগে ৫৮ বলে ৫০ রান করেন তিনি। তার বিদায়ে যায় বাবর-রিজওয়ান জুটি। বাবর-রিজওয়ান জুটি ভেঙে যাওযার আর ঘুরে দাঁড়াতে পারেনি পাকিস্তান।

রিজওয়ানের বিদায়ের পর একপ্রান্ত আগলে রাখেন মোহাম্মদ রিজওয়ান। অন্যপ্রান্তে তখন ব্যাটারদের আসা যাওয়ার মিছিল।

দলীয় ১৫৫ রানে বাবর আজমের বিদায়ের পর দলীয় ১৬২ রানে ফিরে যান সৌদ শাকিল। ১০ বলে ৬ রান করেন তিনি।

তারে বিদায়ের পর ওই ওভারেই কুলদ্বীপ যাদবের দ্বিতীয় শিকারের হয়ে ফিরে যান ইফতিখার আহমেদ। ৪ বলে ৪ রান করেন তিনি।

ইফতিখারের বিদায়ের পর ৪৯ রান করে ফিরে গেলেন রিজওয়ান। এক রানের জন্য হাফ সেঞ্চুরি হলো না তার। ৬৯ বলে ৪৯ রান করেনি তিনি।

রিজওয়ানের পর শাদাব খানও বেশি সময় থাকতে পারলেন না ক্রিজে। বুমরাহর শিকার হয়ে ৫ বলে ২ দুই রান করে ফিলে গেলেন তিনি। তার বিদায়ে ১৭১ রানেই ৭ উইকেট হারায় পাকিস্তান।

১৭১ রানে ৭ উইকেট হারানোর পর আর বেশিদূর আগাতে পারেনি পাকিস্তান। শেষ পর্যন্ত ৪২ ওভার ৫ বল খেলে সব উইকেট হারিয়ে ১৯১ রানে থামে পাকিস্তানের ইনিংস।

ভারতের হয়ে জাসপ্রিত বুমরাহ, মোহাম্মদ সিরাজ, হার্দিক পান্ডিয়া, কুলদ্বীপ যাদব ও রবীন্দ্র জাদেজা দুইটি করে উইকেট নেন।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
© All rights reserved © 2019 Breaking News
Theme Customized By BreakingNews