নড়াইলে বিজয় টিভির প্রতিনিধির বিরুদ্ধে আদালতে দু’টি মামলা - Jn24 News

নড়াইলে বিজয় টিভির প্রতিনিধির বিরুদ্ধে আদালতে দু’টি মামলা

লেখক: প্রতিবেদক ঢাকা
প্রকাশ: ডিসেম্বর ৯, ২০২২
নড়াইলে বিজয় টিভির প্রতিনিধি মো. জিয়াউর রহমান জামী

নড়াইল প্রতিনিধি : নড়াইলে বিজয় টিভির প্রতিনিধি মো. জিয়াউর রহমান জামীর বিরুদ্ধে সদর বিজ্ঞ আমলী আদালতে প্রতারণার দায়ে মামলা দায়ের করেছেন শহরের কুড়িগ্রামের স্বপ্না বেগম। বৃহস্পতিবার দুপুরে স্বপ্না বেগম ও স্বপ্না বেগমের স্বামী মো. আসাদ মোল্যা দু’টি মামলা আদালতে দায়ের করেছেন। আদালত নড়াইল সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকতার ওপর তদন্তের আদেশ দিয়েছেন। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন আদালতের অ্যাডভোকেট শরিফুল ইসলাম নান্টু।
মামলার বাদী স্বপ্না বেগম জানান, নড়াইল পৌরসভার হাতির বাগান মোড়ে ইট, বালি, খোয়া, সিমেন্টের পিলার, বাথরুমের চাড়ি, স্লাব, পরিবেশ বান্ধব চুলা বিক্রয়ের রাজু স্যানিটারী নামে ব্যাবসায়িক প্রতিষ্ঠান রয়েছে। সেখান থেকে মো. জিয়াউর রহমান জামী ৫ সেপ্টেম্বর ৪০টি সিমেন্টের পিলার যার মূল্য ৪৮ হাজার টাকা এবং ১৫ সেপ্টেম্বর আরো ৭০টি সিমেন্টের পিলার যার মূল্য ৭৭ হাজার টাকা ও এক গাড়ি বালি যার মূল্য ১৪ হাজার টাকা ক্রয় করে। মোট মূল্য ১ লক্ষ ৩৯ হাজার টাকার মধ্যে ১০ হাজার টাকা পরিশোধ করে বাকী টাকা পরে দিবে বলে মাল বুঝে নিয়ে চলে যায়।কিছুদিন অতিবাহিত হলে স্বপ্না বেগম বাকী ১ লক্ষ ২৭ হাজার টাকা চাইলে জামী আজ দিব কাল দিব বলে ঘুরাইতে থাকে। ফোনে টাকা একাধিকবার চাইলে বিজয় টিভির নড়াইল প্রতিনিধি মো. জিয়াউর রহমান জামী তাঁকে নানাবিধ গালিগালাজ করে এবং ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ করে দেওয়ার হুমকি দেয়। পরে স্বপ্না বেগম এলাকার গন্যমাণ্য ব্যাক্তিদের জানিয়ে তার স্বামী মো. আসাদ মোল্যা ও দক্ষিন নড়াইলের মিলন গাজী ও ভওয়াখালী গ্রামের শরীফকে নিয়ে জামীর বাড়িতে টাকা চাইতে যান।তখন সকলের সামনে জামী বলেন তোকে টাকা দেওয়া হবে না, আর যদি টাকা চাইতে আসিষ তাহলে তোকে জীবনে শেষ করে ফেলবো। তাই তিনি জীবন বাঁচানো ও পাওনা টাকা পাবার জন্য আইনের আশ্রয় নিয়ে মামলা করেছেন।
এ বিষয়ে বিজয় টিভির প্রতিনিধি মো. জিয়াউর রহমান জামী বলেন, আমার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করা হচ্ছে।
এ বিষয়ে নড়াইল সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. মাহমুদুর রহমান বলেন, আইন সবার জন্য সমান। সাংবাদিকের বিরুদ্ধে আমাদের থানায় যদি কোন অভিযোগ আসে তার সঠিক তদন্ত করে প্রতিবেদন দেওয়া হবে।